মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন হয়নি ! ফের গান্ধীমূর্তি পাদদেশে অনশনে নবম-দ্বাদশ স্তরের এসএসসি মেধা তালিকাভুক্ত বঞ্চিত প্রার্থীরা



আমাদের ভারত, ৯ অক্টোবর: সবাই যখন পুজোর প্রস্তুতিতে মগ্ন তখন ওরা গান্ধীমূর্তি পাদদেশে আবার অনশনে বসেছে। ওদের
সরস্বতীপুজো কেটেছিল অনশন মঞ্চে। ওদের দেবীপক্ষও কাটছে অনশন মঞ্চেই। সেন্ট্রাল পার্ক গেট নং ৫ এর সামনে ১৮৭ দিনের দীর্ঘ অবস্থান বিক্ষোভ ও রিলে অনশনের পর গান্ধী মূর্তি পাদদেশে নতুন করে অনশন শুরু হয়েছে এসএসসি মেধা তালিকাভুক্ত বঞ্চিত প্রার্থীদের।

২০১৬ সালে স্কুল সার্ভিস কমিশন কর্তৃক নবম-দ্বাদশ স্তরের শিক্ষক নিয়োগের যে পরীক্ষা হয়, সেখানে নম্বর ভিত্তিক মেধাতালিকা প্রকাশিত হয়নি। রেশিও মেনে নিয়োগ করা হয়নি। মেধাতালিয়ায় অপেক্ষাকৃত পেছনের সারির প্রার্থীকে আগে নিয়োগ করা হয়েছে। এমনি একাধিক অভিযোগ নিয়ে ২০১৯ সালে চাকরি পাওয়া থেকে বঞ্চিত প্রার্থীদের যে ২৯ দিনের দীর্ঘ অনশন হয়। সেই সময় মুখ্যমন্ত্রী মেধা তালিকাভুক্ত বঞ্চিত সকল প্রার্থীর চাকরী সুনিশ্চিত করার প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু তা বাস্তবায়িত হয়নি, বরং অকৃতকার্যরাও চাকরী পেয়েছে বলে অনশনকারীদের অভিযোগ।

ফলে সেই দুর্নীতির প্রতিবাদে আরও একবার হাইকোর্টের অনুমতি নিয়ে সল্টলেক সেন্ট্রাল পার্কের কাছে ২০২১-র জানুয়ারীতে প্রাকৃতিক দুর্যোগ তথা মহামারীরকে উপেক্ষা করে ১৮৭ দিনের দীর্ঘ অনশন ও অবস্থান বিক্ষোভ করেন বঞ্চিত চাকরি প্রার্থীরা। তাদের দাবি ছিল মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া প্রতিশ্রুতির বাস্তবায়ণ করতে হবে। সেবার শিক্ষামন্ত্রী ও এসএসসি-এর চেয়ারম্যান সাংবাদিক সম্মেলন করে বঞ্চিতদের ন্যায্য চাকরী সুনিশ্চিত করার আশ্বাস দেন ও তার জন্য ৪০ দিন সময় চেয়ে নেন। কিন্তু তারপর দুমাসের বেশি সময় চলে গেলেও মেধাতালিকাভুক্ত অথচ দুর্নীতির কারণে বঞ্চিত প্রার্থীদের চাকরির জন্য কোনো পদক্ষেপ করা হয়নি বলে অভিযোগ।

অনশনকারীদের অভিযোগ, “যেখানে শিক্ষকের অভাবে সরকারী স্কুল বন্ধ হতে চলেছে, সেখানে ন্যায্য চাকরী চাইতে গিয়ে মেধা তালিকাভুক্ত বঞ্চিতদের উপর চলছে পুলিশের অত্যাচার নেমে আসছে। মিথ্যা কেসে ফাঁসিয়ে ন্যায্য দাবীকে দমিয়ে রাখার চেষ্টা চলছে।” তাদের কথায় এখনও মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নের দাবিতে তারা আবার অনশন মঞ্চে সামিল হয়েছেন।


পূর্ববর্তী প্রবন্ধেঝাড়গ্রামে প্রচেষ্টা গ্রুপের বস্ত্র বিতরণ কর্মসূচি