ঘুমন্ত অবস্থায় ভার্জিনিটি হারিয়েছিলেন অভিনেত্রী এমি শ্যুমার

এমি শ্যুমার

চারিদিকে ধর্ষণ যেমন ক্রমশ মাথা চারা দিয়ে উঠেছে তেমনই বেড়ে চেলছে উইমেন এমপাওয়ারমেন্ট ক্যাম্পেইন৷ যৌন নিগ্রহ, হেনস্থা, ধর্ষণ নিয়ে প্রতিবাদ করার সাহস দেখাচ্ছেন বহু মেয়েরা৷ মুখ খুলেছেন বহু ছোট থেকে বড় অভিনেত্রীও৷

সম্প্রীতি হলিউডের #metoo ক্যাম্পেইনের উদ্যোগে অধিকাংশ নায়িকারা নানান বিখ্যাত প্রযোজক, পরিচালকের বিরুদ্ধে যৌন নিগ্রহের অভিযোগ এনেছেন৷

তেমনই বছরখানেক আগে প্রকাশ্যে আসে এমি শ্যুমারের ভয়াবহ যৌন হেনস্থার ঘটনা৷ এমির বয়ফ্রেন্ড তাঁকে ঘুমের মধ্যে তাঁর অনুমতি না নিয়েই যৌন সম্পর্ক করে বলে দাবি করেছেন ওই অভিনেত্রী। এবং এইভাবেই অভিনেত্রী তাঁর ভার্জিনিটি হারান বলে দাবি।

গত বছরখানেক আগে উইনফ্রের একটি টক শোতে এসে এই ঘটনার খোলসা করেন এমি৷ নায়িকা জানান, তিনি এবং তাঁর বয়ফ্রেন্ড একই বাড়িতে ছিলেন৷ তিনি ঘুমচ্ছিলেন৷ ঘুমন্ত অবস্থার সত্ত্বেও এমির বয়ফ্রেন্ড তাঁকে রেপ করে৷ আর এইভাবেই তিনি তাঁর ভার্জিনিটি হারান৷

এমি শ্যুমার

সেই মারাত্মক অভিজ্ঞতার কথা জানাতে গিয়ে তিনি বলেছেন, “আমি সেই সময় ঘুমোচ্ছিলাম৷ আর ঘুমনোর সময় আমার বয়ফ্রেন্ড আমার সঙ্গে যৌন সম্পর্ক করা মানে সেটা রেপেরই সমান৷ ওই ঘটনার আগে আমি ভার্জিন ছিলাম৷ তখন রিলেশনশিপের যেই স্টেজে আমার ছিলাম এসব নিয়ে আমরা কোন কথা বলিনি, কোন আলোচনাও করিনি এই বিষয় নিয়ে আমরা৷”

একইসঙ্গে তিনি আরও বলেছেন, “সাধারণত আমরা সেক্স লাইফে ছিলাম না৷ সাধারণত যেকোন কাপল প্ল্যান করেই এগোয়৷ আমরা দু’জনে তখন কিছু প্ল্যানও করিনি৷ ও হঠাৎ করে আমার ঘুমের মধ্যেই এরম করে বসল৷ আমার যখন ঘুম ভাঙে আমি তখন ভীষণই রেগে, খুব কষ্ট পেয়েছিলাম৷ কখনও ভাবিনি যে যাকে আমি এত বিশ্বাস করি সে কখনও এরম করবে আমার সঙ্গে৷ ও তথন আমি বেশ ঘাবড়ে গিয়েছিলাম৷” যদিও সম্পূর্ণ বিষয়ের জন্য নিজের প্রেমিকাকে পুরোপুরি কাঠগড়ায় তোলেননি অভিনেত্রী এমি।

তাঁর কথায়, “ও ভেবেছিল ঘুমের মধ্যে থাকলেও আমি জানি, বুঝেছি৷ ও আমার রাগ কমাবার চেষ্টা করছিল৷ কিন্তু এটা এমনই একটা ঘটনা যা আমি কখনও ভুলতে পারব না শতচেষ্টা করলেও৷ আমি তো ওকে কোন অনুমতি দিইনি৷ আমায় ঘুমন্ত অবস্থায় রেপ করা হয়েছে৷ এই পদ্ধতিতেই আমি আমার কুমারীত্ব খুইয়ে বসি৷” এই ঘটনাটি তাঁর কাছে বিশ্বাসঘতকতার মতো৷

সূত্র